এসএসসির ৫০টি উত্তরপত্র পেয়ে থানায় জমা দিলেন অটোরিকশা চালক

  • Abashan
  • ২০২০-০২-১২ ১১:৫৩:৪৭
image

ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের চলতি এসএসসি পরীক্ষার বাংলা প্রথমপত্রের ৫০টি উত্তরপত্র পেয়ে থানায় জমা দিয়েছেন এক অটোরিকশা চালক। সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাতে জামালপুর শহরের জয়নাল আবেদীন নামে ওই অটোরিকশা চালক উত্তরপত্রের বান্ডিলটি পান। মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাতে উত্তরপত্রগুলো জামালপুর সদর থানায় জমা দেয়া হয়। গত ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে সারাদেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। প্রথম দিন বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

 

সূত্র জানায়, সোমবার সন্ধ্যার পর জামালপুর শহরের ভোকেশনাল মোড়ে অটোরিকশা চালক জয়নাল আবেদীন পরীক্ষার উত্তরপত্রের একটি বান্ডিল পান। অটোরিকশায় ময়মনসিংহ থেকে আসা একজন পুরুষ যাত্রী তা ফেলে গেছেন বলে ধারণা করলেও ফেরত দেয়ার বিষয়টি তিনি বুঝতে পারছিলেন না। সেখানে চলতি এসএসসি পরীক্ষার বাংলা প্রথমপত্রের ৫০টি উত্তরপত্র রয়েছে বলে অন্যদের মাধ্যমে নিশ্চিত হন জয়নাল। পরীক্ষার খাতা হারিয়ে গেলে শিক্ষার্থীরা বিপদে পড়বে ভেবে তিনি তা ফেরত দেয়ার চেষ্টা চালান। সহযোগিতা নেন আবু সাঈদ বাচ্চু নামে আরেক অটোরিকশা চালকের। তার মাধ্যমেই মঙ্গলবার জামালপুর সদর থানায় খাতাগুলো জমা দিতে যান। কিন্তু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তা জমা না নিয়ে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন।

 

অটোরিকশা চালক আবু সাঈদ বাচ্চু স্থানীয় একজন সাংবাদিকের সহায়তায় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তখন জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদ-বিন-হাসান রাতেই জামালপুর সার্কিট হাউজে ডেকে নিয়ে উত্তরপত্রগুলো দেখেন। তিনি চালকের প্রতিনিধি বাচ্চুকে জামালপুর সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে খাতাগুলো সেখানে জমা দিতে বলেন। অবশেষে এ প্রক্রিয়ায় উত্তরপত্রগুলো থানায় জমা দেয়া হয়।

 

অটোরিকশা চালক আবু সাঈদ বাচ্চু জানান, খাতার বান্ডিলসহ ওই যাত্রী ময়মনসিংহ থেকে জামালপুরে এসেছেন। তিনি জামালপুর জেলার কোনো বিদ্যালয়ের শিক্ষক বলে ধারণা করা হচ্ছে। জামালপুর সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালেমুজ্জামান বলেন, একটি জিডি করে উত্তরপত্রের বান্ডিলটি থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। উত্তরপত্রগুলো হারিয়ে গেলে ৫০ জন পরীক্ষার্থীর খুবই ক্ষতি হতো। অটোরিকশা চালক বিষয়টির গুরুত্ব বুঝে থানায় ছুটে এসেছেন বল তাকে ধন্যবাদ।