শনিবার, মে ৩০, ২০২০

ফ্রেশ ফুডস বিডির এক বছর পূর্তি!

  • জাতীয় প্রতিবেদক
  • ২০২০-০৫-০৫ ০০:২১:২৬
image

নিরাপদ খাবার নিশ্চিত করতে পারে মানুষের সুস্থ জীবন। মানুষের চলার পথে সবচে বড় প্রয়োজন তার সুস্থ একটা জীবন। মানুষ যখন সুস্থ থাকে তখন তার জীবন তার কাছে হয় ওঠে আনন্দময়। তার পারিপার্শ্বিক সব কিছুই হয় ওঠে মধুর। পরিবার সমাজ রাষ্ট্র সব জায়গাতে তার উপর অর্পিত কাজগুলো সে খুব দক্ষতার সাথে পালন করতে পারে। সুস্থ শরীরের সাথে মনের গভীর সম্পর্ক আছে। সুস্থ শরীরে বসবাস সুস্থ মনের।

আধুনিক জীবনে শিল্পজাত খাদ্য একটি স্বাভাবিক ব্যাপার। এ খাদ্যকে স্বাভাবিক এবং ভেজাল ও অন্যান্য দূষণ থেকে নিরাপদ অবস্থায় বিতরণ এখন একটি বিশ্ব সমস্যা। অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজি ছাড়াও নানা কারণে খাদ্য দূষিত হতে পারে। খাদ্য উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণ, পরিবহণ, খাদ্যগ্রহণ প্রক্রিয়ার যে কোন পর্যায়ে শিল্পায়িত খাদ্য খাদ্যের অনুপযোগী হয়ে যেতে পারে। খাদ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে ভোক্তার দ্বার পর্যন্ত খাদ্যের গুণগত মান নিশ্চিত রাখা একটি বড় সরকারি ও বেসরকারি দায়িত্ব।

শিল্পোন্নত দেশে খাদ্যবাহিত রোগের সংখ্যা প্রতিবছর শতকরা ৩০ ভাগ বৃদ্ধি পেয়েছে মর্মে তথ্য রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিবছর প্রায় ৫৬ মিলিয়ন মানুষ দূষিত খাদ্যের ফলে রোগে আক্রান্ত হয়েছে বলে জানা যায়। ফলে ৩ লাখ ২৫ হাজার রোগী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য গিয়েছে। প্রতিবছর এ ধরনের রোগীর মূত্যুর সংখ্যা হবে ৫ হাজার। অনুন্নত দেশসমূহে এ সংক্রান্ত তথ্যের দূর্বলতা রয়েছে। তবে একথা অনস্বীকার্য যে, এ সমস্ত দেশেই দূষিত খাদ্যজনিত রোগের প্রকোপ ও ব্যাপকতা অধিকতর।

বাংলাদেশের মত গরীব দেশে নিরাপদ খবর বিষয়টি অনেকাংশেই বিরল একটা বিষয়। যেখানে খাটির নামে চলে ভেজালের মহড়া। মানুষ চাই নিরাপদ খাবার কিন্তু ব্যবসায়ীদের মারপ্যাঁচে তাকে অনিচ্ছা সত্ত্বেও খেতে হচ্ছে অনিরাপদ খাবার।

অনেক কাছের মানুষের হাহাকার শুনেছি নিরাপদ খাবারের জন্য। দীর্ঘ দিনের পর্যবেক্ষণে মনে হয়েছিল যে এমন কিছু করা উচিত যাতে এই মানুষগুলোর পাশে দাঁড়ানো যায় নিরাপদ খাবার নিয়ে।

তবে যেহেতু আমি কৃষিবিদ সেদিক থেকে বিবেচনা করলে আমার জন্য সেইফ ফুড নিয়ে কাজ করা খুব কষ্টের কারণ হবে বলে মনে করি না। অনেক দিন সেইফ ফুড নিয়ে কাজ করবো বলে স্বপ্ন দেখতে দেখতে একদিন বাস্তবেই মাঠে নেমে পড়লাম।

গেলো বছরের মে মাসে একটা শো রুম ভাড়া নিয়ে শুরু করলাম নতুন পথের যাত্রা। দেখতে দেখতে একবছর গড়িয়ে গেল। প্রথম দিকে অনেক কষ্ট হয়েছিল। কারণ নিজের চাকরির পাশাপাশি একটা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করা খুব কঠিন আবার সেটা যদি হয় একটু ব্যতিক্রম বিশেষ করে নিরাপদ খাবারে।

আলহামদুলিল্লাহ আমি যে লক্ষ্য নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিলাম সেটা আমি অর্জন করেছি। আর সেটা হলো স্রেফ নিরাপদ খারার সরবরাহ করা। ফ্রেশ ফুডস বিডি একটা মানবিক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। যেখানে ব্যবসার চেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয় মানুষের প্রয়োজনীয়তার দিকে। আর ব্যবসা করলে লাভ বা ক্ষতি আসবেই এটাই ব্যবসার নিয়ম। যখন মানুষের মাথায় মুনাফার দুষ্ট চক্র ঘুরপাক খাবে তখন সে মুনাফার জন্য সব করতে থাকে যা অনেক সময় বিবেবর্জিত কর্মকাণ্ডে পরিণত।

ব্যবসা করা আল্লাহর রসূলের সুন্নত এই বিষয়টি আমি সব সময় মাথায় রাখি। আল্লাহপাক ব্যাবসার মধ্যে রিজিকের প্রশস্ততা রেখেছেন। সুতরাং হালাল পন্থায় ব্যবসা করলে অবশ্যই আল্লাহপাকের সাহায্য আসে।

সবশেষে আমি ফ্রেশ ফুডস বিডি এর পক্ষ থেকে সকল শুভাকাঙ্ক্ষীদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি আমাদের সাথে থাকার জন্য।
সবাই বাসায় থাকুন নিরাপদ থাকুন।
এগ্রিবিজনেস বিডি টুযেন্টিফোর কে
এমনটাই বলছিলেন ফ্রেশ ফুডস বিডি এর সিইও কৃষিবিদ ফাইজুল ইসলাম।
সবার কাছে ফ্রেশ ফুডস বিডি এর জন্য দোয়া কামনা করেন তিনি।


এ জাতীয় আরো খবর