শনিবার, এপ্রিল ৪, ২০২০

‘ভাগ্য’ বদলানোর মিশন

  • Abashan
  • ২০২০-০৩-০১ ১০:৫৪:৪১
image

সিলেট ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সৌন্দর্য সবাইকে মুগ্ধ করে। চারপাশে টিলা, সবুজ চা বাগান, অপরূপ স্থাপত্যশৈলী—সবকিছুই সুন্দর। তবে এ মাঠে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সটা মোটেই মুগ্ধ হওয়ার মতো নয়। এ মাঠে এখন পর্যন্ত চারটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে জয় মাত্র একটিতে।

 

সিলেটেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে ১৫১ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। সেটা অবশ্য ২০১৮ সালের ঘটনা। এবার ভিন্ন পরিস্থিতি। মাত্রই শেষ হওয়া টেস্টে জিম্বাবুয়েকে ইনিংস ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। তার ওপর এটা টেস্ট নয়, ওয়ানডে। কিন্তু সিলেটের মাঠ বলেই ভয় থেকে যায়। শঙ্কা জাগায় দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সও। গত বিশ্বকাপ থেকেই শুরু হয়েছে এ উল্টো যাত্রা। মাঝে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধের ওই টেস্টটা বাদ দিলে তো একেবারেই নাজুক অবস্থায় যাচ্ছে। এর সঙ্গে সাকিবের নিষেধাজ্ঞা, মাশরাফিকে নিয়ে বিতর্ক, ইনজুরি—সব মিলিয়ে অনেকটা টালমাটাল অবস্থায় বাংলাদেশ ক্রিকেট।

 

মাঠের জয়ই আবার ট্র্যাকে ফেরাতে পারে দলকে। সেটা জানেন দলের সবাই। জানেন দলপতি মাশরাফিও। এ সিরিজে টার্গেট সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমরা জয়ের মধ্যে নেই। এখন দলকে সঠিক পথে ফেরানোই সবচেয়ে জরুরি।’

 

তবে শুরুটা গুরুত্বপূর্ণ। শুরু ভালো করতে পারলে ভালো হবে। টেস্টে জেতায় দল জয়ের ফ্লেভারে আছে, যুক্ত করেন মাশরাফি। জিম্বাবুয়ের প্রতিও সমীহ প্রকাশ করলেন টাইগার অধিনায়ক। বললেন, ‘জিম্বাবুয়ে যেকোনো দলকে হারাতে পারে। আগেও আমরা তাদের কাছে হেরেছি। তাই মাঠে সর্বোচ্চটুকুই দিতে হবে।’

 

বাংলাদেশের জন্য এ সিরিজটার গুরুত্বের কথা মনে করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের জন্য এ সিরিজটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জিতলে কেউ কিছু বলবে না। কিন্তু এক ম্যাচ হারলেই অনেক বেশি সমালোচনা হবে।’ ম্যাচের আগের দিন শনিবার সকালে সিলেট ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলন করে বাংলাদেশ। অনুশীলনে আফিফ হোসেনসহ কয়েকজন তরুণের প্রতি আলাদা গুরুত্ব দিতে দেখা যায় কোচকে।

 

যদিও অনুশীলনের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে মাশরাফি জানালেন, প্রথম ম্যাচের একাদশ এখনো চূড়ান্ত করা হয়নি। তবে এক্ষেত্রে কোচের মতকে গুরুত্ব দেয়া হবে বলেও জানালেন তিনি। বিকালে একই মাঠে অনুশীলনে আসে জিম্বাবুয়ে দল। অনুশীলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক চামু চিবাবা ভালো ক্রিকেট খেলার ব্যাপারে গুরুত্ব আরোপ করেন। চিবাবা বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে পারছি না। তবে এ অবস্থা থেকে উত্তরণের চেষ্টা করছি। আশা করছি, এ সিরিজেই আমরা বাজে সময়টা কাটিয়ে উঠতে পারব।’

 

মাশরাফি রাইট ট্র্যাকে ফিরতে চান, বাজে সময় কাটিয়ে উঠতে চান চিবাবা। দুই অধিনায়কের কথায়ই মিলছে লড়াইয়ের আভাস। তবে এ লড়াই যারা উপভোগ করবে, তাদের মধ্যে তেমন আগ্রহ দেখা গেল না। শনিবার থেকে সিলেট জেলা স্টেডিয়াম ও ক্রিকেট স্টেডিয়ামের বুথে টিকিট বিক্রি হচ্ছে। কিন্তু

 

শনিবার দুপুরে গিয়ে দেখা যায় দুটি বুথই ফাঁকা। সিলেটে ম্যাচ মানেই গ্যালারিভর্তি দর্শক। এতদিন এমনটিই দেখে আসছে সবাই। আজ কি তবে তার ব্যতিক্রম হতে যাচ্ছে। বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্সই কি মাঠবিমুখ করেছে দর্শকদের নাকি প্রতিপক্ষের নাম জিম্বাবুয়ে বলে?


এ জাতীয় আরো খবর