শুক্রবার, আগস্ট ১৪, ২০২০

মুমিনুল-শান্তর ব্যাটে ধাক্কা সামলে উঠল বাংলাদেশ

  • Abashan
  • ২০২০-০২-০৭ ১৩:৩৮:৩১
image

শুরুতেই পথ হারিয়েছিল বাংলাদেশ। ২ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে তোলে মাত্র ৩ রান। হতাশা নিয়ে বিদায় নেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সাইফ হাসান। ইনিংসের প্রথম দুই ওভারে দুই ওপেনারকে হারানোর পর বাংলাদেশকে বিপর্যয় থেকে টেনে তুললেন মুমিনুল হক ও নাজমুল হোসেন শান্ত।


তাদের দৃঢ়তায় রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে পথ খুঁজে পেয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম দিনে প্রথম ঘণ্টায় ১৪ ওভারে ৩২ রান করেছে বাংলাদেশ। এ রিপোর্ট লেখার সময় সংগ্রহ ২১.১ ওভারে ২ উইকেটে ৬১ রান। শান্ত ৬৬ বলে ২৮ রানে ব্যাট করছেন। অধিনায়ক মুমিনুল ৫৫ বলে ৩০ রানে রয়েছেন উইকেটে। 


প্রতিপক্ষের পেসারদের সুইং সামলে শান্ত-মুমিনুল লড়ে যাচ্ছেন। এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই পথ হারায় বাংলাদেশ। প্রথম দুই ওভারেই ফিরে যান দুই ওপেনার। সাইফ হাসানের পর বিদায় নেন তামিম।

 

বাংলাদেশ দলকে পেস আক্রমণে বিপাকে ফেলার কৌশলে শুরুতেই সফল আজহার আলি। নাসিম শাহ, শাহিন শাহ আফ্রিদি আর মোহাম্মদ আব্বাসের গতি-বাউন্স-সুইংয়ে শুরুতেই হোঁচট বাংলাদেশের। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় সংগ্রহে ৩ রান যোগ হতেই উইকেট হারায় সফরকারীরা। এরপর একই রানে আরেকটি উইকেটের পতন!

 

রাওয়ালপিন্ডি স্টেডিয়ামে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের এই লড়াইয়ে টেস্ট অভিষিক্ত সাইফ হাসান ফিরলেন শূন্য রানে। তামিম ইকবালের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধন করতে নেমে দুঃস্বপ্নের অভিষেক হলো সাইফের। ইনিংসের প্রথম ওভারে কোনো রান না করেই শাহিন শাহ আফ্রিদির বলে কুপোকাত তিনি। এরপর মোহাম্মদ আব্বাস ফেরান তামিমকে। এই ওপেনার করেন মাত্র ৩ রান।

 

সিরিজের প্রথম টেস্টের একাদশে ফিরলেন নাজমুল হোসেন শান্ত আর অভিজ্ঞ পেসার রুবেল হোসেন। ছিটকে গেছেন সৌম্য সরকার, আল-আমিন হোসেন ও নাঈম হাসান।

 

দীর্ঘ ১৬ বছর পর ফের পাকিস্তানের মাঠে টেস্ট খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের মাঠে এ পর্যন্ত চারটি টেস্ট খেলেছে টাইগাররা। হেরেছে সব কটিতেই। সব মিলিয়ে দেশটির বিপক্ষে ১০ টেস্টে লড়েছে টিম টাইগার্স। কিন্তু ৯টিতে হার দেখেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। একটি টেস্ট ড্র।

 

রাওয়ালপিন্ডির মাঠে এর আগে কখনোই টেস্ট খেলেনি বাংলাদেশ। অবশ্য এই মাঠের ইতিহাস স্বস্তি দিচ্ছে না আজহার আলির দলকেও। সর্বশেষ ২৩ বছরে এখানে টেস্ট জিততে পারেনি স্বাগতিকরা।

 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলা টেস্ট দলটা ধরে রেখেছে পাকিস্তান। একাদশে আছেন লেগ স্পিনার ইয়াসির শাহ। বোলিং আক্রমণে ইয়াসিরের সঙ্গী তিন পেসার মোহাম্মদ আব্বাস, নাসিম শাহ আর শাহিন শাহ আফ্রিদি।

 

বাংলাদেশ একাদশ:

তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিথুন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন কুমার দাস, তাইজুল ইসলাম, ইবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহী ও রুবেল হোসেন।

 

পাকিস্তান একাদশ:
আজহার আলি, আবিদ আলি, শান মাসুদ, বাবর আজম, আসাদ শফিক, হারিস সোহেল, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ইয়াসির শাহ, মোহাম্মদ আব্বাস, শাহিন শাহ আফ্রিদি ও নাসিম শাহ।


এ জাতীয় আরো খবর